স্বপ্নের দ্বারপ্রান্তে ক্রোয়েশিয়া, ক্ষত প্রশমনে ফ্রান্স

নিউজফিডবিডি.কম

স্পোর্টস ডেস্ক :: রাশিয়ায় বিশ্বকাপের শেষ দিনে আজ শিরোপার জন্য মাঠে নামবে ক্রোয়েশিয়া ও ফ্রান্স। জিতলে ক্রোয়েশিয়ার জন্য এটিই হবে আন্তর্জাতিক ফুটবলে কোনো বড় ধরনের ট্রফি জয়।

আর ফ্রান্সের জন্য এটি অবশ্য নতুন কোনো ঘটনা নয়। গত ছয়টি বিশ্বকাপের মধ্যে তৃতীয়বারের মতো ফাইনালে ওঠলো তারা।

জিতলে বিশ বছর পর এটি হবে ফ্রান্সের দ্বিতীয় শিরোপা। এর আগে ১৯৯৮ সালের বিশ্বকাপ জিতেছিলো ফ্রান্স।

আর কোচ দিদিয়ের দেশঁমের জন্য এটি তৃতীয় বিশ্বকাপ এবং তৃতীয় ব্যক্তি হিসেবে খেলোয়াড় ও কোচ হিসেবে ট্রফি জেতার স্বপ্ন দেখছেন তিনি।

অন্যদিকে ক্রোয়েশিয়ার কোচ জ্লাতকো দালিচ দলটির দায়িত্ব নিয়েছেন মাত্র নয় মাস কিন্তু দল জিতলে তার জন্য এটা হবে জীবনের সেরা অর্জন।

ক্রোয়েশিয়ার স্বপ্ন
দেশটির জনসংখ্যা মাত্র চল্লিশ লাখের কিছু বেশি। যদিও এর চেয়ে কম জনসংখ্যা নিয়ে ১৯৩০ সালে শিরোপা জিতেছিলো উরুগুয়ে।

ফিফা র্যাং কিংয়ে বিশতম এই ক্রোয়েশিয়া শিরোপা জিতলে এটিই হবে সবচেয়ে কম র্যাং কিং নিয়ে বিশ্বকাপ জেতা।

বিশ বছর আগে সেমিফাইনালে ফ্রান্সের সাথে হেরেই স্বপ্ন ভঙ্গ হয়েছিলো ক্রোয়েশিয়ার।

আর এবার যখন সেমিফাইনালে ইংল্যান্ডকে হারিয়ে দিলো দালিচের দল তখন রীতিমত বন্য উৎসবে মেতে উঠেছিলো গোটা ক্রোয়েশিয়া।

‘ড্রিম, ড্রিম, ড্রিম! ক্রোয়েশিয়া ফাইনালে’ -এটাই শিরোনাম করেছিলো স্পোর্টসকি নভসটি পত্রিকা।

আর দালিচ বলেছিলো ‘এলিটদের তালিকায় পৌঁছানো হলো।’

এখন আর মাত্র একটি ধাপ…তারপরেই ইতিহাস।

খেলা শেষে আসলে জানা যাবে এ স্বপ্ন পূরণের আনন্দে ভাসছে কি-না লাল, সাদা আর নীল পতাকা।

ফ্রান্সের জন্য ক্ষত প্রশমনের সুযোগ

২০১৬ সালে ইউরোতে নিজ দেশেই ফাইনালে উঠেছিলো ফ্রান্স কিন্তু হারতে হয়েছিলো পর্তুগালের কাছে।

এখনো সেই পরাজয়ের ধাক্কা কাটাতে পারেনি ফ্রান্স।

গণমাধ্যম তাই দেখছে বিশ্বকাপকে সেই ক্ষত প্রশমনের সুবর্ণ সুযোগ হিসেবে।

একটি পত্রিকা লিখেছে, ‘এখন প্রেক্ষাপট ভিন্ন। খেলোয়াড়রা পরিপক্ব হয়েছে এবং একজন কিলিয়ান এমবাপে আছেন।’

ফরাসী গণমাধ্যম এমন নানাভাবেই বিশ্লেষণ করছে।

একটি পত্রিকা লিখেছে ক্রোয়েশিয়ার চেয়ে চব্বিশ ঘণ্টা আগে সেমিফাইনাল খেলেছে ফ্রান্স এবং তারা নির্ধারিত সময়েই জয়লাভ করেছে।

এন.এফ.বি/ এন.এম

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here