বর্ষায় ভ্রমণ প্রেয়সীরা যেতে পারেন যেসব জায়গায়

বর্ষায় অনেকেই ঘুরতে যেতে পছন্দ করেন। যাদের পছন্দ পাহাড়, বন, নদী কিংবা -হাওড়-বাওড় তারা ঘুরতে বর্ষাকেই বেছে নেন। বর্ষাকালে কিছু কিছু জায়গায় পর্যটকরা ভিড় জমান। এই বর্ষায় ঘুরে আসুন মনোরম তেমন কিছু জায়গায়।

সুন্দরবন:  বাংলাদেশের দক্ষিণ পশ্চিমাঞ্চলের উপকূলীয় এলাকায় ছয় হাজার বর্গকিলোমিটারেরও বেশি জায়গা জুড়ে রয়েছে সুন্দরবনে। ইউনেস্কো ১৯৯৭ সালে এটিকে বিশ্ব ঐতিহ্য হিসেবে ঘোষষা করে। এ বনের অন্যতম আকর্ষণ রয়েল বেঙ্গল টাইগার ও চিত্রা হরিণ। এটি বিশ্বের সবচেয়ে বড় শ্বাসমূলীয় বন। বর্ষায় এটি অপরূপ হয়ে ওঠে। তাই বর্ষায় ঘুরতে যেতে পারেন সুন্দরবেন।

বিছনাকান্দি: সিলেটের গোয়াইনঘাট উপজেলায় ভারত সীমান্ত ঘেঁষে বিছানাকান্দির অবস্থান। অপরূপ এ জায়গায় দেশের বাইরে থেকেও ঘুরতে আসেন। বর্ষাকালে মেঘালয়ের পাহাড়ি ঝরনাধারা বিছানাকান্দির পাথরের বিছানার ওপর ছড়িয়ে পড়ে। তাই এই বর্ষার এক ফাঁকেই চলে যান বিছানাকান্দি।

ভাসমান পেয়ারা বাজার: ঝালকাঠিরে কীর্তিপাশা খালে বর্ষা মৌসুমে বসে শতবর্ষী পুরনো ভাসমান বাজার। এ বাজারটির দৃশ্য দেখে যে কারোরই চোখ জুড়াবে। তাই বর্ষায় এখানে প্রচুর পর্যটক ভিড় করে। এছাড়া পিরোজপুরের স্বরুপকাঠিতেও বসে এমন বাজার। চাইলে দুই জেলাতেই ঘুরতে যেতে পারেন। এ এলাকায় প্রচুর পেয়ারা চাষ হয় বলে কম দামে পেয়ারাও খেতে পারবেন।

টাঙ্গুয়ার হাওর: সুনামগঞ্জ জেলার ধর্মপাশা ও তাহিরপুর উপজেলার বিস্তীর্ণ এলাকা জুড়ে টাঙ্গুয়ার হাওরের অবস্থান। শীতে এখানে পানি শুকিয়ে গেলেও বর্ষায় কানায় কানায় পূর্ণ হয়ে যায়। বর্ষায় এটি অপরূপ রূপে ধরা দেয়। তাই বর্ষায় এখানে যেতে পারেন।

শ্রীমঙ্গলের চা বাগান: মৌলভীবাজার জেলার শ্রীমঙ্গলে বাংলাদেশে সবচেয়ে বেশি চা বাগান। বর্ষা মৌসুমেই চা বাগানগুলো বেশি সুন্বাদর হয়ে ওঠে। এসময় চা বাগানগুলোতে কর্ম-চাঞ্চল্য থাকে।

রাতারগুল: সিলেটের গোয়াইনঘাট উপজেলায় অবস্থিত এই রাতারগুল জলাবন। এই বনটি বছরের প্রায় অর্ধে সময় পানিতে নিমজ্জিত থাকে। বর্ষাতে বেশি পানি থাকে বলে এটি তখন বেশি সুন্দর হয়ে ওঠে। নৌকায় করে ঘুরতে পারবেন এ বনে।

চলনবিল: বাংলাদেশের উত্তরাঞ্চলও হতে পারে বর্ষায় আপনার ঘোরার স্থান। বাংলাদেশের সবচেয়ে বড় বিলের নাম চলনবিল যা  নাটোর, সিরাজগঞ্জ আর পাবনা  জেলাজুড়ে এর বিস্তৃত। শুকনো মৌসুমে এখানে চাষাবাদ হলেও বর্ষায় এটি কানায় কানায় পূর্ণ ওয়ে ওঠে। হাটিকুমরুল-বনপাড়া মহাসড়কের দুই পাশে বর্ষা মৌসুমে বিলটি যেন সমুদ্রে রূপ নেয়।

আড়িয়ল বিল: ঢাকা থেকে খুব কাছেই আড়িয়ল বিল। এটি মুন্সীগঞ্জের শ্রীনগরে অবস্থিত। এটির আয়তন প্রায় ১,৬৬,০০০ একর। মনোমুগ্ধকর এ বিলে বর্ষাকালে নৌকায় ঘুরে বেড়ালেই মন ভরে যাবে। শাপলাসহ নানা জলজ উদ্ভিদের দেখা মিলবে এখানে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here